Creative Marketers BD

Creative Marketers BD Services

creative marketers bd

আপনার ব্যবসাকে আরও বেশি সংখ্যক মানুষের সামনে উপস্থাপন করতে চান? ব্যবসাকে আরও বড় করে নতুন একটি পর্যায়ে নিয়ে যেতে চান?

 

যদি তাই হয়, তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস আপনাকে এই সুযোগগুলি করে দিতে পারে।

 

কিন্তু বাংলাদেশে আপনি কোথায় সবচেয়ে সেরা ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিসটি পেতে পারেন এবং সেটা কিভাবে?

 

কিছুক্ষনের মধ্যে আপনি সেটাই জানতে চলেছেন। আপনি আমাদের থেকে সার্ভিস নিন বা না নিন, এখান থেকে আপনি কিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্য পেতে পারেন যেগুলো ব্যবসার জন্য খুবই উপকারী।

এগুলো জানা থাকলে আপনার ব্যবসার ব্যাপারে আরও সহজে সেরা সিদ্ধান্তটি নিতে পারবেন।

 

তাহলে আর দেরী কেন, চলুন শুরু করা যাক।  

 

Digital Marketing Services in Bangladesh

 

নিজের ব্যবসাকে বড় করে তুলতে কে না চায়? কিন্ত আপনি এটা জানেন কি ব্যবসা বড় করে তোলার সঠিক পদক্ষেপ গুলি কি? কেউ তার ব্যবসা তখনি বড় করেতে পারে, যখন সঠিক ক্রেতাগন তার পণ্য সম্পর্কে জানবে। কিন্তু এটা কিভাবে করা যেতে পারে? ডিজিটাল মার্কেটিং আপনাকে এই ব্যপারেই সহায়তা করবে।

 

যে কোন ব্যবসাতেই সঠিকভাবে মার্কেটিং ছাড়া সফলতা অর্জন করা খুবই দুষ্কর। প্রতিটি ব্যবসাতেই প্রতিযোগিতা খুবই বেঁড়ে গিয়েছে। গত ১০ বছরে মার্কেটিং এর ধরনে আমূল পরিবর্তন এসেছে। গতানুগতিক মার্কেটিং এখন আর তেমন কার্যকরী নয়। একমাত্র ডিজিটাল মার্কেটিং এর দ্বারাই সম্ভব সম্ভাব্য ক্রেতাগনকে আকৃষ্ট করা। 

 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর দ্বারা আপনিও কি আপনার ব্যবসাকে বড় করে তুলতে চান? ক্রিয়েটিভ মার্কেটার্স বাংলাদেশ আপনাকে এক্ষেত্রে সহায়তা করতে পারে।

ব্যবসাকে বড় করে তুলতে চান?

     

    যেমনটা আমি বললাম শুরুতে, আমি আপনার সাথে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কিছু গুরুত্বপূর্ন তথ্য শেয়ার করতে যাচ্ছি। তো চলুন, একটু গভীরে যাওয়া যাক।

     

    কিভাবে আমি সেরা মানের ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস পেতে পারি?

     

    বর্তমানে, অনেক বাংলাদেশী কোম্পানি এবং এজেন্সি ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেবা প্রদান করছে। দূর্ভাগ্যবশত, সব যায়গা থেকেই আপনি ভালো মানের সার্ভিস পাবেন না। তাহলে এই মান যাচাই এর উপায় টা কি? চলুন জেনে নেওয়া যাক।

     

    কিভাবে এসইও সার্ভিসের মান যাচাই করা যায়?

     

    ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম প্রধান একটি বিষয় হচ্ছে এসইও। তাই শুরুতেই, আমি আপনাকে এসইও সার্ভিসের মান যাচাই এর ব্যাপারে বলতে চাই। 

    কারও থেকে এসইও সার্ভিস নেওয়ার আগে তার পূর্ববর্তী কাজসমূহের স্যাম্পল দেখুন। তারা আগে যেসব কিওয়ার্ড এবং ওয়েবসাইট র‍্যাংক করিয়েছে সেগুলো দেখুন। এখান থেকে শুরু আসল যাচাই প্রক্রিয়া।

    আলোচনার ভিতরে যাবার আগে আপমি আপনাকে কিছু এসইও টুলস সম্পর্কে বলতে চাই। অন্তত আপনার এগুলো সম্পর্কে ব্যসিক ধারনা থাকতে হবে।

    • Ahref
    • Moz
    • SEMRush
    • Ubersuggest (FREE)

     

    এই টুলসগুলি আপনাকে সহায়তা করবে এসইও সার্ভিসের মান যাচাই এর ক্ষেত্রে।

    • সার্চ ভলিউম

    প্রথমেই, তাদের দেওয়া কিওয়ার্ডের সার্চ ভলিউম যাচাই করে নিন। এটি দ্বারা আপনি জানতে পারবেন প্রতি মাসে কত সংখ্যক লোক ঐ কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করে। যদি আপনি দেখতে পান যে, সার্চ ভলিউম খুবই কম বা ০ তাহলে বুঝে নিন ঐ এসইও কোম্পানি আপনাকে বোকা বানাচ্ছে। এদের থেকে দূরে সরে থাকুন।

    • কিওয়ার্ড স্টাবিলিটি

    দ্বিতীয় ধাপে আপনাকে কিওয়ার্ড স্টাবিলিটি চেক করতে হবে। কিছু সংখ্যক লোক ব্ল্যাক হ্যাট এসইও টেকনিক অনুসরন করে থাকে। এগুলো সার্চ ইঞ্জিন দ্বারা নিষিদ্ধ। এই ২০২০ সালে এসে, এসব পদ্ধতিতে যদি কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক হয়ে ও যায়, সেটি কখনই স্থায়ী হবেনা । আর এসব পদ্ধতিতে কিওয়ার্ড সীমিত সময়ের জন্য রাংক করিয়ে, আপনার ওয়েবসাইটকে দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতির সম্মুখীন করবেন না।

    প্রাথমিক ভাবে, আপনি এভাবেই এসইও সার্ভিসের মান যাচাই করতে পারবেন।

     

    আমাদের স্যাম্পলগুলি চেক করে দেখতে চান? Creative Marketers BD সফলতার সাথে অনেক সার্চ ভলিউমের কিওয়ার্ড র‍্যাঙ্ক করেছে। চাইলে আমাদের থেকে এসইও সার্ভিস পাতে পারেন।

    আমাদের স্যাম্পল নিন।

       

      কিভাবে কন্টেন্ট রাইটিং সার্ভিসের মান যাচাই করা যায়?

       

      কন্টেন্টকে একটি ওয়েবসাইটের প্রান বললে সেটি ভূল হবে না। কিন্তু আমাদের দেশে অধিকাংশ লোকই এটা জানে না কিভাবে কন্টেন্টের মান যাচাই করতে হয়। আজ আমি আপনাদের চেষ্টা করবো সেসব লোকদের থেকে আলাদা করতে এবং কন্টেন্টের মান যাচাই সম্পর্কে একটি পরিষ্কার ধারনা দিতে।

      আশা করি, এরপর থেকে আপনাকে আর কন্টেন্টের মান যাচাই নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হবে না।

       

      • কন্টেন্ট রাইটিং টুলস

      এসইও এর মত কন্টেন্ট এর কোয়ালিটি যাচাই করতে সহায়তার জন্যও রয়েছে দারুন কিছু টুলস। কারো থেকে কন্টেন্ট নেওয়ার আগে আপনাকে কিছু বিষয় চেক করে নিতে হবে যেমন ধরুন কোথাও থেকে কপি করা কিনা, রিড্যাবিলাটি কেমন, গ্রামাটিক্যাল কোন ভুল আছে কিনা ইত্যাদি।

      তো চলুন দেখে নেওয়া যাক, টুলসের মাধ্যমে কীভাবে এসব যাচাই করবেন।

      Copyscape: এই  টুলের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই দেখে নিতে পারবেন আপনার কন্টেন্ট কোথাও থেকে কপি করা কিনা। তাই, লেখার স্যাম্পল পাওয়ার পরে সেটিকে চেক করে নিন কপিস্কেপ নামক এই টুলের মাধ্যমে। আপনি ইউনিক কন্টেন্ট চেক করে থাকলে আপনাকে এরকম রেজাল্ট দেখাবে।

       

      আর যদি কন্টেন্ট কোথাও থেকে কপি করা থাকে তাহলে রেজাল্ট এভাবে আসবে। কোথার থেকে কপি করা হয়েছে আপনি সেটা ও জানতে পারবেন।

       

      যেসব কন্টেন্ট অলরেডি পাবলিশ করা হয়ে গেছে সেই লিঙ্ক দিয়ে আপনি ফ্রিতেই দেখেই নিতে পারবেন কন্টেন্টটি কপি করা কিনা। আশা করি এটি আপনার জন্য খুবই উপকারী হবে।

       

      Hemingway Editor: এটি খুবই জনপ্রিয় এবং উপকারী একটি টুল কন্টেন্ট চেক করার জন্য। এর দ্বারা আপনি কোন কন্টেন্টের রিড্যাবিলিটি চেক করতে পারবেন। সুতরাং, এর থেকে আপনি এটা বুঝতে পারবেন যে কন্টেন্ট টি পড়ে কেউ কত সহজে এটি বুঝতে পারবে। এটিতে কন্টেন্ট দেওয়ার পর আপনাকে একটি স্কোর দেখানো হবে। এই স্কোরের থেকেই বুঝতে পারবেন কীভাবে আপনার কন্টেটের রিডিং কোয়ালিটি কেমন।

      এর জন্য আপনাকে, এখানে যেতে হবে এবং আপনার কন্টেন্টটি পেস্ট করতে হবে। তারপর একটি স্কোর দেখাবে। নিচের ছবিটিতে লক্ষ্য করুন।

       

       

       

       

       

       

       

      এটার স্কোর ১০ দেখাচ্ছে। এটাকে আমরা বাতিল বলে ঘোষনা করেছি। তাহলে কত স্কোর হলে সেটি গ্রহনযোগ্য হবে? এটার আদর্শ স্কোর ৬ অথবা এর নিচে।

      আরেকটি ছবি দেখুন-

       

       

       

       

       

       

       

       

      এখানে আপনারা স্কোর ৫ দেখতে পাচ্ছেন। সুতরাং, এটি গ্রহনযোগ্য।

      একটি ভালো কন্টেন্টের অন্যতম প্রধান গুন হচ্ছে এটি হবে সহজবোধ্য। তাই এরপর থেকে কনটেন্ট রাইটিং সার্ভিস নেওয়ার আগে এটি চেক করে নিতে ভুলবেন না।

      আরও একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয় মাথায় রাখতে হবে যেটি এখনও বলা বাকি। বলুন তো কি সেটা?

      হ্যা, ঠিকই ধরেছেন। আমি গ্রামারের কথাই বলছি।

       

      Grammarly: এই টুলের মাধ্যমে আপনি কোন আর্টিকেলের গ্রামাটিক্যাল ভুল চেক করে নিতে পারেন। এটি ফ্রি ও প্রিমিয়াম দুইটা ভার্সনেই পেয়ে যাবেন। এটি গ্রামারের বিভিন্ন বিষয়ের ভিত্তিতে একটি স্কোর দিয়ে থাকে। নিচের ছবিটির দিকে লক্ষ করুন।

       

       

       

       

       

       

       

       

      এই আর্টিক্যাল টি আমাদের একজন অভিজ্ঞ রাইটার লিখেছেন। কিন্তু এটি মাথায় রাখতে হবে, গ্রামার চেক করার জন্য গ্রামারলি এর এই স্কোরটিই একমাত্র ভাবাচ্য নয়। যেহেতু এটি একটা টুল মাত্র, গ্রামারলি চেকের পরও এতে ভূল থাকতে পারে। তাই ম্যানুয়ালি চেকিং সম্পর্কে ও ধারনা থাকতে হবে।

       

      ম্যানুয়ালী চেকিং

      লেখার গঠনঃ প্রথমত, লেখার গঠনটি সুন্দর এবং পরিচ্ছন্ন হতে হবে। যখন কোন লেখাকে সুদর গঠনের সাথে উপস্থাপন করা হয়, এমনিতেই এটি পড়ার আকর্ষন জন্মায়। আর যখন কোন তথ্যবহুল লেখাকেও সুন্দরভাবে উপস্থাপন না করা হয়, সবাই এটার থেকে মনোযোগ হারিয়ে ফেলে।

       

      ছোট প্যারায় লেখাঃ লেখাকে ছোট ছোট প্যারায় বিভক্ত করে উপস্থাপন করা হয়েছে কিনা সেটিও চেক করে দেখতে হবে। ছোট বাক্য এবং অনুচ্ছেদ পড়তে সুবিধাজনক। একটি গবেষণাতে দেখা গিয়েছে, ছোট বাক্যে লেখা পড়তে ৭১১% সুবিধাজনক বড় বাক্য ও অনুচ্ছেদের তুলনায়।

       

       অনুচ্ছেদগুলিকে শিরোনামের মাধ্যমে উপস্থাপন করাঃ রাইটার অনুচ্ছেদ গুলো সঠিক শিরোনামের মাধ্যমে উপস্থাপন করছে কিনা যাচাই করে নিন। এটা লেখাকে আরও আকর্ষনীয় করে তোলে।

       

      বুলেট পয়েন্টঃ নিশ্চিত হয়ে নিন রাইটার সঠিক ভাবে বুলেট পয়েন্টের ব্যবহার করছে কিনা।  

       

      লেখার ধরনঃ লেখার মধ্যে রাইটার এবং রিডার্সদের মধ্যে একটি আলাপচারিতার ভাব থাকতে হবে। তাহলে, লোকজন সেটিকে পড়তে বেশি সাচ্ছন্দবোধ করে থাকে। এটি অবশ্যই বিবেচনায় রাখবেন।

       

      এসব ব্যাপারগুলোকে মাথায় রেখে আপনি খুব সহজেই কণ্টেন্ট এর মান যাচাই করতে পারবেন।

      তো চলুন কিছু প্র্যাকটিস করা যাক আমাদের স্যাম্পল দিয়ে। আমরা প্রফেশনাল কন্টেন্ট রাইটিং সার্ভিস দিয়ে থাকি।

         

        এখন আশা করি কন্টেন্ট রাইটিং এবং এসইও সার্ভিস এর মান যাচাইয়ে আপনার কোন সমস্যা হবে না। কেউ যদি আপনাকে কোয়ালিটির নামে আপনাকে মিথ্যা বলে, আপনি সহজেই ধরে ফেলতে পারবেন।

         

        বাংলাদশের গ্রাফিক্স ডিজাইন সার্ভিসের মান কীভাবে যাচাই করবো?  

        বাংলাদেশে ভালো মানের গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা তো বেড়েই চলেছে । কিন্তু এটির সঠিক মান যাচাই সম্পর্কে এখনো অনেকেই অবগত নন। এই অংশটি মূলত তাদের জন্যই। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক।

         

        ডিজাইনটিকে এর উদ্দেশ্যের সাথে সামঞ্জস্য করুন

        এটি বুঝতে পারলেই আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের কোয়ালিটি সম্পর্কে মোটামোটি একটি ধারনা পেয়ে যাবেন। ডিজাইনের দিকে তাকিয়ে নিজেকে প্রশ্ন করুন, “ এটি টি আসলেই এর ভাবমূর্তি ফুটিয়ে তুলতে পেরেছে? উত্তরটিই হবে এর মানের পরিমাপক।

        আর একটু বুঝিয়ে বলি, ধরুন আপনি একটি লোগো ডিজাইন সার্ভিস নিতে আগ্রহী। যার থেকে আপনি সার্ভিস নিতে চান তার কাছে পূর্বের কিছু স্যাম্পল চেয়ে নিন। তারপর মিলিয়ে দেখুন লোগো গুলি কোম্পানির ভাবমূর্তি কতটুকু মেলাতে পারছে। যদি মনে হয় যে না প্রকাশ করতে পারে নি, তাহলে ঐ সার্ভিসদাতাকে এড়িয়ে চলাই শ্রেয়।

         

        আসল কিনা দেখে নিন

        আপনি যখন কারো থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন সার্ভিস নিবেন তখন সেটি কতটা আসল এবং স্বচ্ছ যাচাই করে নিবেন। কেননা, যদি সে অন্যের আইডিয়া কপি করে থাকে সেটি দ্বারা আপনার ব্যবসায়ের ক্ষতি ছাড়া আর কিছুই হবে না। এজন্য ব্যপারটি একটু যাচাই করে নিন।

        কোন লোগো বা ডিজাইন কপি কিনা তা আপনি এখান থেকে চেক করে নিতে পারেন।

         

        মধ্যকার লেখাগুলিকে দেখুন

        লোগো ডিজাইন , বিজনেস কার্ড ডিজাইন বা ইনফোগ্রাফিক্স সব ক্ষেত্রেই ভিতরের লেখা গুলিও খুবই গুরুত্বপূর্ন। তাই অবশ্যই মধ্যকার লেখার বিষয়টি আপনাকে গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে। লেখাগুলি স্পষ্ট কিনা, পড়তে কোন অসুবিধা হচ্ছে কিনা ভালোভাবে দেখে নিন। যেমন ধরুন, হালকা রঙের ব্যাকগ্রাউন্ডের মধ্যে হালকা লেখা পড়তে অসুবিধা হয়। এসব বিষয় দেখে নিন।

         

        মোটামোটিভাবে এই বিষয়গুলি খেয়াল করে আপনি কোন গ্রাফিক্স ডিজাইনিং কোম্পানির কাজের দক্ষতা এবং মান যাচাই করতে পারবেন।

        ক্রিয়েটিভ মার্কেটার্স বাংলাদেশ সফলতার সাথে গ্রাফিক্স ডিজাইন সার্ভিস সেবা প্রদান করে আসছে।

        চলুন, আমাদের স্যাম্পল দেখে নেওয়া যাক।

           

          কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং আপনার ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে?

          বর্তমানের যুগ যে ইন্টারনেটের যুগ এতে কোন সন্দেহ নেই। এটিই এখন পৃথিবীর সবথেকে বড় প্লাটফর্ম। আর ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমেই আপনি এখানে নিজেকে সঠিক ভাবে উপস্থাপন করতে পারবেন।

          এজন্যই মূলত পৃথিবীর বড় বড় সব কোম্পানি ডিজিটাল মার্কেটিং কে এত গুরুত্বের সাথে দেখছে। 

           

          • সঠিক ক্রেতাদের সামনে আপনার পণ্য তুলে ধরুন

          আপনার সম্ভাব্য কাস্টমার ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যেই একজন। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে তাদের সামনে আপনার ব্যবসাকে তুলে ধরুন।

          • ব্রান্ড ভ্যালু বাড়ান

          অনলাইন উপস্থিতির মাধ্যমে আপনার ব্যবসার ব্রান্ড ভ্যালু বৃদ্ধি পায় এবং এটির গ্রহনযোগ্যতা বাড়ে। তাহলে আর দেরী কিসের?

          • বিশ্বাস অর্জন করুন

          অনলাইনে উপস্থিতি আপনাকে ক্রেতাদের কাছে আরও বিশ্বস্ত করে তুলে। আপনার ক্রেতা এবং সম্ভাব্য ক্রেতাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন।

          • আরও বেশী দৃশ্যমান হোন

          ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি এমন লোকদের সামনে নিজেকে তুলে ধরবেন যারা ইতিমধ্যে আগ্রহী ঐ ধরনের সেবা নেওয়ার জন্য। এভাবে নিজেকে আরও সূদৃশ্যমান করে তুলুন।

          • ক্রেতাদের থেকে শুনুন

          ডিজিটাল মার্কেটিং এর দ্বারা আপনি আপনার অডিয়েন্সের ফিডব্যাক ও নিতে পারবেন। যেটা খুবই জরূরী যে কোন ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে।

          • ক্রেতাদের আপনার কাছে আসতে দিন

          আপনি যে সেবা প্রদান করে থাকেন যখন কেউ সেটা নিতে আগ্রহী হয়, আপনার সম্পর্কে জানতে পারবে। তাই, ক্রেতাদের আপনার কাছে আসতে দিন। এটাই ডিজিটাল মার্কেটিং এর সৌন্দর্য।

           

          এরকম আরও অনেক সুবিধা আপনি ভোগ করতে পারেন, ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাহায্যে। কিন্তু এর জন্য আপনাকে প্রফেশনাল ডিজিটাল মার্কেটার থেকে সার্ভিস নিতে হবে। কেননা, সঠিক উপায়ে করা না হলে এটি কোন সুফলই বয়ে আনতে পারবে না।   

           

          এখন চলুন এটা জেনে নেওয়া যাক, ক্রিয়েটিভ মার্কেটার্স বাংলাদেশ কীভাবে আপনার ব্যবসাকে বড় করে তুলতে সাহায্য করবে?

          ক্রিয়েটিভ মার্কেটার্স বাংলাদেশের সার্ভিসের সাথে এগিয়ে যান।

          ই-মেইল মার্কেটিং 

          CMBD আপনাকে দিচ্ছে দেশ সেরা ই-মেইল মার্কেটিং সার্ভিস। এখনই সময় আপনার রেভিনিউ বৃদ্ধি করার। বর্তমান সময়ে, ই-মেইল মার্কেটিং ব্যবসার প্রসারে অন্যতম ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

          আমাদের এই সার্ভিসটির দ্বারা আপনার ব্যবসাকে দিতে পারেন নতুন একটি মোড়। আমাদের গভীর বিশ্লেষণ এবং তার সঠিক বাস্তবায়ন গড়ে তুলতে পারে এক সুন্দর সম্ভাবনা।

          এখনি যোগাযোগ করুন।

           

           

           

          ফেইসবুক মার্কেটিং

          ২.৬ বিলিওন মাসিক ব্যবহারকারী থাকার দরুন ফেইসবুক মার্কেটিং কে অবহেলা করার কোন সুযোগ নেই। এছাড়াও, এটি গুগলে এড দেওয়ার থেকে যথেষ্ট সাশ্রয়ী। তাই, আপনার কাছে দারুন সুযোগ রয়েছে নিজের ব্যবসাকে এখানে উপস্থাপন করার।

          ইতিমধ্যে যারা আপনার ক্রেতা এবং সম্ভাব্য ক্রেতা উভয়ের সাথেই কানেক্টেড থাকুন। লোভনীয় সুযোগ, তাই নয় কী? এটাকে লুফে নিন আমাদের ফেইসবুক মার্কেটিং সার্ভিসের দ্বারা।

           

          ইউটিউব মার্কেটিং

          বিশ্বের দ্বিতীয় সবথেকে বড় ওয়েবসাইট। প্রতিদিন ১ বিলিওন ঘন্টা লোকজন ইউটিউব ভিডিও দেখে ব্যয় করেন। এরকম একটি প্ল্যাটফর্মে মার্কেটিং করার থেকে কি আপনি নিজেকে বিরত রাখতে চাইবেন? অবশ্যই না।

          আমাদের ইউটিউব মার্কেটিং সার্ভিস দ্বারা এখনি ইউটিউবের সুবিধা নিন। কোন রকম দেরী না করে এখনি আমাদের যোগাযোগ করুন।

           

          এসইও সার্ভিস

          এসইও সার্ভিসের দ্বারা আপনি এমন ক্রেতাদের কাছে পৌছাবেন, যারা আপনার সার্ভিসটির জন্যই আগ্রহী। এর থেকে ভালো আর কি হতে পারে?

          সার্চ ইঞ্জিনে টপ রেজাল্টের মধ্যে আসুন এবং অসংখ্য ভিজিটর নিয়ে নিন। গুগল বিং, দুই ধরনের সার্চ ইঞ্জিনের জন্যই আমরা কাজ করে থাকি।

          একটু বিস্তারিত ভাবে বলি।              

           

           গুগল এসইও এবং এসইএম সার্ভিস

          গুগল হচ্ছে বর্তমানের সবথেকে বড় সার্চ ইঞ্জিন। প্রতিদিন ৬.৯ বিলিয়ন বার গুগোলে সার্চ করা হয়। সুতরাং এখানে নিজেকে তুলে ধরার সবিধা তো আপনি বুঝতেই পারছেন। শুধু গুগোলের মাধ্যমেই আপনার ব্যবসাকে উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারেন।

          গুগল আপানকে অর্গানিক এবং পেইড দুই ধরনের ট্রাফিকই আপনি পেতে পারেন। এক্ষেত্রে আমাদের এসইও সার্ভিস আপনাকে সাহায্য করবে অর্গানিক ভিজিটর পেতে।

          আর, এসইএম বা সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর দ্বারা আপনি পেইড ভিজিটর পেতে পারবেন। সবেথেকে সেরা ব্যাপারটি হচ্ছে, যখন কেউ আপনার এডে ক্লিক করবে শুধুমাত্র তখনি আপনাকে পে করতে হবে। কেউ যদি আপনার দেখানো পেইড রেজাল্টে ক্লিক না করে, সেক্ষত্রে আপনাকে কোন টাকা দিতে হবে না। এখনি আমাদের থেকে সার্ভিসটি নিন এবং সুবিধাগুলি উপভোগ করুন।

          সার্চ ইঞ্জিনের থেকে ট্রাফিক নিতে চান?

             

            বিং এসইও সার্ভিস

            গুগোলের পরেই বিং হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিনের জন্য পরিচিত আরেক নাম। এখান থেকেও আপনি আপনার সাইটের জন্য ভিজিটর পেতে পারেন।

            বিং থেকে ভিজিটর নিতে আগ্রহী? CMBD আপনাকে সহায়তা করবে। এর একটি সুবিধা হচ্ছে এটি গুগল এর থেকে সাশ্রয়ী। এখানে প্রতিযোগিতাও কিছুটা কম। বিং এ আপনার ওয়েবসাইট টি র‍্যাঙ্ক করাতে এখনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

             

            লোকাল এসইও সার্ভিস

            আপনি কি নির্দিষ্ট লোকেশন অনুযায়ী অডিয়েন্স টার্গেট করতে চান? তাহলে আমাদের থেকে নিয়ে নিন লোকাল এসইও সার্ভিস। আমরা বড় এবং ছোট সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে আমাদের সেবা প্রদান করে আসছি।       

            লোকাল এসইও হচ্ছে নির্দিষ্ট ভৌগোলিক যায়গা অনুযায়ী ওয়েবসাইটকে অপ্টিমাইজ করা। এর মাধ্যমে একটি নির্দিষ্ট স্থানের লোকদেরকে আপনি আকৃষ্ট করতে পারবেন। তাহলে আর দেরী কেন?

            লোকাল কাস্টমারদের আকৃষ্ট করুন।

               

               

               

               

               

               

              কেন  ক্রিয়েটিভ মার্কেটার্স বাংলাদেশ কে বেছে নিবেন?

              বাংলাদেশে অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেবাটি দিয়ে থাকে। কিন্তু কেন আমরা অন্যদের থেকে আলাদা? আমাদের থেকে কি এমন সুবিধা পাবেন যেটি হয়ত অন্য কোথাও পাবেন না? চলুন জেনে নেইঃ

               

              কাজের সর্বোচ্চ মানের নিশ্চয়তা

              আমরা সবসময় দৃঢ়প্রতিজ্ঞ আপনাকে সেরা মান প্রদান করতে। আমাদের স্যাম্পল নিয়ে দেখতে পারেন। আশা করি, পার্থক্য বুঝতে পারবেন।

               

              মানি ব্যাক গ্যারান্টি

              আমরা আমদের কাজ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী। একই সাথে আপনার সন্তুষ্টি আমাদের একান্ত কাম্য। যদি আপনার মনে হয় আমাদের সার্ভিস নিয়ে আপনি অসন্তুষ্ট, আমরা আপনাকে ক্যাশ ব্যাক দিয়ে দিব।

               

              ডেডলাইন অনুসরণ

              আপনার সময় আমাদের কাছে মূল্যবান। আমরা সবসময় ডেডলাইন মেনে চলি।

               

              উদ্ভাবনী চিন্তাশক্তি

              আমাদের নামের মতই আমাদের রয়েছে উদ্ভাবনী চিন্তাশক্তির দক্ষ কর্মী। যা আপনার ব্যবসায়ের প্রসারে দারুণ ভূমিকা রাখবে।

               

              কাস্টমার সাপোর্ট

              আমাদের থেকে কোন সার্ভিস নেওয়ার পর, ভবিষ্যতে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে আমাদের সাথে বিনা সংকোচে যোগাযোগ করুন। আমরা আমাদের ক্রেতাদের থেকে সবসময় শুনতে আগ্রহী। আমাদের কাস্টমার সাপোর্ট সর্বদা আপনার সাথে আছে।

               

              আর কি চাই আপনার? শুরু করুন আমাদের সাথে পথ চলা।

               

              কমন কিছু প্রশ্নের উত্তরঃ

               

              প্রঃ ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

              উঃ আপনার ব্যবসাকে অনলাইনের বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করে সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়াই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

               

              প্রঃ ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস কি?

              উঃ যে সার্ভিস নেওয়ার মাধ্যমে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং সেবা পেতে পারেন তাই হল ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস। জনপ্রিয় কিছু ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস হলঃ এসইও সার্ভিস, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ই-মেইল মার্কেটিং ইত্যাদি।

               

              প্রঃ ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য কেমন  খরচ হয়?

              উঃ এটি আসলে আপনার ব্যবসার ধরন, চাহিদা, কি কি সেবা আপনি নিতে আগ্রহী এসব বিষইয়ের উপর নির্ভর করে। আপনার কি কি সার্ভিস লাগবে আমাদের সেটা জানালে আমরা আপনাকে নির্দিস্ট করে খরচের বিষয়টি জানাতে পারবো।

               

              প্রঃ এসইও কয় ধরনের হয়?

              উঃ মূলত দুই ধরনের। অন-পেজ এসইও এবং অফ পেজ এসইও।

               

              প্রঃ আমি কি যে কোন ধরনের ব্যবসার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস পেতে পারি?

              উঃ না, আমরা ইসলাম বহির্ভূত কোন কাজের জন্য সার্ভিস দেই না। আপনার ব্যবসা হারাম হয়ে থাকলে আমরা আপনাকে আমাদের সার্ভিস গুলো দিতে পারবো না।

               

              প্রঃ আমি কি আপনাদের কাজের কিছু স্যাম্পল দেখতে পারি?

              উঃ জ্বি, অবশ্যই। আমাদের কন্টাক্ট ফর্মটি পূরণের মাধ্যমে অথবা আমাদের মেইল করে স্যাম্পল সংগ্রহ করতে পারেন।

               

              প্রঃ আমি আরও কিছু জানতে চাই আপনাদের ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস সম্পর্কে, কিভাবে জানবো?

              উঃ আপনার প্রশ্নটি আমাদের মেইল করুন, বা প্রদত্ত নাম্বারে কল করে জানান। আমরা যথাশীঘ্র আপনাকে উত্তর জানাবো।

               

              Creative Marketers আপনার অপেক্ষায় রইল। সুলভ মূল্যে উন্নত সার্ভিস নিতে আপনাকে আমন্ত্রণ!

              Open chat
              Welcome!

              How Can We Help You